Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
Legal Study
Wednesday , January 23 2019

কৃষি খাস জমি ব্যবস্থাপনা ও বন্দোবস্ত নীতিমালা, পর্ব-৯

বন্দোবস্তের সিদ্ধান্ত পরবতী কার্যক্রমঃ

  • জেলা প্রশাসক কর্তৃক মোকদ্দমাটির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণের পরে উহা সংশ্লিষ্ট উপজেলায় ফেরত পাঠাতে হবে এবং সংশ্লিষ্ট ভূমিহীনকে অনুলিপি যোগে তার পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে জানিয়ে দিতে হবে৷
  • ভূমিহীন পরিবার প্রধান ঐ অবগতি পত্র পেয়ে প্রতি একর বা তার অংশের জন্য ১.০০(এক টাকা) হারে সেলামী ও চলতি বৎসরের খাজনা ডি,সি,আরের মাধ্যমে তহশীল অফিসে জমা দিয়ে রশিদ সংগ্রহ করবে৷
  • উক্ত রশিদ এবং জেলা প্রশাসকের অনুমোদনের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অফিস থেকে একসেট মুদ্রিত কবুলিয়ত ফরম (সংযোজনী ৮) পূরণ করতে হবে ৷ এর একটি সেটে ৪টি কপি থাকবে ৷ মূল কপিটি কবুলিয়ত সম্পাদনকারীর জন্য, ২য় কপি থাকবে কেইস রেকর্ডের সাথে, তৃতীয় কপি থাকবে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে, ৪র্থ কপি থাকবে রেজিষ্ট্রি অফিসে ৷ এই কবুলিয়ত ফরম জেলা প্রশাসক মুদ্রণ করে দেবেন৷
  • সরকারের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক বরাবরে এই কবুলিয়ত দিতে হবে ৷ কবুলিয়তের মূল কপিতে প্রয়োজনীয় ননজুডিশিয়াল ষ্ট্যাম্প লাগাতে হবে৷
  • উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেলা প্রশাসকের সাথে আলাপ করে কখন, কোথায়, কিভাবে বন্দোবস্তি প্রাপ্ত ভূমিহীন দম্পত্তিকে উপস্থিত করে কবুলিয়ত সম্পাদন করা হবে তা স্থির করবেন এবং জেলা প্রশাসকের নির্দেশে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন৷
  • সরকারের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক সম্পাদিত কবুলিয়ত গ্রহণ করবেন এবং নির্বাচিত জমি বন্দোবস্ত দেবেন৷ তিনি কবুলিয়ত ফরমের নির্ধারিত স্থানে স্বাক্ষর দান করবেন৷
  • বন্দোবস্ত  দেওয়া জমি কোনক্রমেই বিক্রয় বা হস্তান্তর করা যাবে না তবে উত্তরাধিকারীদের নাম পরিবরর্তন করা যাবে ৷ এই বন্দোবস্তের মেয়াদ হবে ৯৯ বছর।
  • জেলা প্রশাসক কর্তৃক কবুলিয়ত গ্রহণের পরে সংশ্লষ্ট রেজিষ্ট্রি অফিসে উহা রেজিষ্ট্রি করতে হবে ৷ এই কবুলিয়ত রেজিস্ট্রেশনের জন্য কোন রেজিষ্ট্রেশন ফিস এর প্রয়োজন হবে না৷
  • ভূমিহীনদের কাছে বন্দোবস্ত দেওয়া জমি ও পরিবারের একটি বিবরণী উপজেলা রাজস্ব কর্মকর্তা কর্তৃক সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে পাঠাতে হবে ৷ সাব-রেজিষ্ট্রার একটি পৃথক নথি খুলে এই অবগতি পত্রসমূহ ভবিষ্যত রেফারেন্স এর জন্য একত্র করে রাখবেন এবং একটি স্থায়ী রেজিষ্টারে এই সব তথ্য লিপিবদ্ধ করে রাখবেন৷ দলিল রেজিষ্ট্রির সময়, এই সকল জমি যাতে বিক্রয় না হয় সেই দিকে সাব- রেজিষ্ট্রার বিশেষ দৃষ্টি রাখবেন৷
  • বাছাইকৃত ভূমিহীন এর কেইস অনুমোদন এবং রেকর্ড প্রণয়ণের কাজগুলি সম্পাদন করার জন্য ভূমিহীনকে যাতে হয়রানী হতে না হয়, সে জন্য এ সকল কাজ করার জন্য সংশ্লিষ্ট এলাকার তহশিলদারকে দায়িত্ব দিতে হবে৷
  • জেলা প্রশাসক সারা মাসে তার অধীনস্থ জেলায় যত ভূমিহীনকে জমি দেওয়া হলো তাদের নাম সম্বলিত তালিকার তিনটি কপি জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশের জন্য প্রতি বাংলা মাসের ১ তারিখে মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করবেন ৷ মন্ত্রণালয় হতে এইগুলো জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশের ব্যবস্থা করা হবে ৷ এই জন্য সংযোজনী ১০ ছকে ব্যবহৃত হবে৷
  • পত্রিকায় তালিকা প্রকাশের পরে ৩০ দিনের মধ্যে ভূমিহীনদের যোগ্যতার বিষয়ে প্রশ্ন তুলে জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ করা যাবে৷

বন্দোবস্ত প্রাপ্ত ব্যক্তি ভূমিহীন নয় প্রমাণিত হলে প্রদেয় বন্দোবস্ত বাতিল ঘোষণা করতে হবে এবং ঘটানোর জন্য দায়ী ব্যক্তি বা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে৷

(১৯৯৮ সনে ১৫ সেপ্টেম্বরের গেজেটে প্রকাশিত খাস জমি বন্দোবস্ত নীতিমালার সংশোধনী মতে)

Check Also

দেনমোহর ও খোরপোষ আদায়ের মোকদ্দমার জন্য একটি লিগ্যাল ড্রাফটিং

ড্রাফটিং এর বিষয়ঃ দেনমোহর ও খোরপোষ আদায়ের মোকদ্দমার জন্য একটি লিগ্যাল ড্রাফটিং সাবলীলভাবে উপস্থাপন করা …