Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
Legal Study
Thursday , November 15 2018

পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী এবং জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বিবরণী, করবর্ষঃ ২০১৮-২০১৯

আয়কর নির্দেশিকা, ২০১৮
আমরা স্বাবলম্বী হবো, সকলে কর দিব
পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী এবং জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বিবরণী
সহজ ভাষায় আইন শিক্ষা
আমাদের ই-লার্নিং পোর্টালটি শিক্ষামূলক ও গবেষণামূলক পোর্টাল, অত্র পোর্টালে প্রকাশিত তথ্য উপাত্ত বিজ্ঞ আইনজীবীদের পরামর্শের বিকল্প নয়। আপনি যদি বিজ্ঞ আইনজীবীদের নিকট থেকে আয়কর রিটার্ন সংক্রান্ত কোন আইনগত সহায়তা / পরামর্শ / প্রেক্টিকেল ট্রেনিং নিতে চান তাহলে 01786265921, 01716409127, 01611234520 নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারেন। 

<<< পূর্ববর্তী

পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণীঃ

যদি কোন ব্যক্তি-কারদাতা নিম্নোক্ত শর্তসমূহ পূরণ করেন তাহলে আয় বছরের শেষ তারিখে তার নিজের, spouse এর (spouse করদাতা না হয়ে থাকলে) এবং নির্ভরশীল সন্তানদের পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী ঐ ব্যক্তির আয়কর রিটার্নের সাথে দাখিল করতে হবে। শর্তসমূহ হলো-

(১) আয় বছরের শেষ তারিখে মোট পরিসম্পদ (gross wealth) এর পরিমাণ ২৫ লক্ষ টাকার অধিক হলে; অথবা

(২) আয় বছরের শেষ তারিখে মোটর গাড়ি (জীপ বা মাইক্রোবাসসহ) এর মালিকানা থাকলে; অথবা

(৩) আয় বছরে কোন সিটি কর্পোরেশন এলাকায় কোন গৃহ-সম্পত্তি বা এপার্টমেন্টের মালিক হলে অথবা গৃহ-সম্পত্তি বা এপার্টমেন্টে বিনিয়োগ করলে

কোন ব্যক্তির ক্ষেত্রে উপরে বর্ণিত শর্তসমূহ পূরণ না হলে পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী দাখিল করা তার জন্য বাধ্যতামূলক নয়। তবে বর্ণিত শর্তসমূহ পূরণ না করা সত্বেও কোন ব্যক্তি কারদাতা চাইলে স্ব-প্রণোদিতভাবে (voluntarily) পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী দাখিল করতে পারবেন। উপরোক্ত শর্তসমূহ পূরণ না করার কারণে পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী দাখিল করেননি এমন যেকোন ব্যক্তিকে উপ কর কমিশনার ধারা ৮০ এর উপধারা (৩) অনুযায়ী নোটিশ প্ররণ করে পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী দাখিল করার জন্য বলতে পারেন।

আয়কর বিধিমালা, ১৯৮৪ সংশোধনের মাধ্যমে পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় প্রদর্শনের জন্য ২০১৬-১৭ কর বছরে নতুন ফরম IT-10B2016 প্রবর্তন করা হয়েছে। যে সকল করদাতা নতুন রিটার্ন ফরম (IT-11GA2016) ব্যবহার করবেন তাদেরকে IT-10B2016 ফরম ব্যবহার করতে হবে। ব্যক্তি করদাতার ব্যবসার পুঁজি বা মূলধন অথবা কৃষি বা অকৃষি সম্পত্তি থাকলে IT-10B2016 ফরমের সাথে schedule 25 সংযুক্ত করতে হবে।

যে সকল ব্যক্তি-করদাতা পুরোনো ফরমে রিটার্ন দাখিল করবেন তারা ঐ রিটার্নের সাথে সংশ্লিষ্ট আগের পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী দাখিল করবেন।

পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী পূরণে সাধারণ জ্ঞাতব্য বিষয়ঃ

(১) পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণীতে আয় বছরের শেষ তারিখের পরিসম্পদ (assets) ও দায় (liabilities) এর সমাপনী জের (closing balance) এর তথ্য প্রদান করতে হবে। উদাহরণস্বরূপ, ১ জুলাই ২০১৭ তারিখে কোন করদাতার যদি মোট ৭,০০,০০০/- টাকার সঞ্চয়পত্র থাকে এবং তিনি যদি ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে আরো ৩,০০,০০০/- টাকার সঞ্চয়পত্র ক্রয় করেন এবং আয় বছরের শেষ তারিখ পর্যন্ত কোন সঞ্চয়পত্র না ভাঙান তাহলে ২০১৮-১৯ কর বছরের জন্য করদাতার দাখিলকৃত পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণীতে সঞ্চয়পত্রের পরিমাণ প্রদর্শন করতে হবে (৭,০০,০০০ + ৩,০০,০০০) = ১০,০০,০০০ টাকা।

(২) ক্রয়কৃত সম্পত্তির ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রেশন ও অন্যান্য আনুষাঙ্গিক খরচসহ ক্রয়মূল্য প্রদর্শন করতে হবে। ধরা যাক একজন করদাতা ১ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে ১৫,০০,০০০ টাকায় একটি অকৃষি প্লট ক্রয় করেছেন, যার রেজিস্ট্রেশন ও অন্যান্য আনুষাঙ্গিক খরচ ছিল ৩,০০,০০০ টাকা। ৩০ জুন ২০১৮ তারিখে প্লটটির বাজারমূল্য ছিল ২২,০০,০০০ টাকা। এক্ষেত্রে ২০১৮-১৯ কর বছরের জন্য করদাতার দাখিলকৃত পরিসম্পদ, দায় ও ব্যায় বিবরণীতে দলিল মূল্যের ভিত্তিতে অকৃষি প্লটের মূল্য (১৫,০০,০০০ + ৩,০০,০০০) = ১৮,০০,০০০ টাকা প্রদর্শিত হবে।

(৩) করদাতার স্বামী/স্ত্রী বা নির্ভরশীল কোন সন্তানের আলাদা কর নথি না থাকলে তাদের পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় করদাতার পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয়ের সাথে একীভূত করে দেখাতে হবে।

(৪) পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণীর কোন ক্রমিকে স্থান সংকুলান না হলে আলাদা কাগজে সে ক্রমিকের জন্য অতিরিক্ত তথ্য লিখে পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণীর সাথে সংযুক্ত করা যাবে। আলাদা কাগজ ব্যবহারের ক্ষেত্রে কাগজের উপরে কর বছর, করদাতার টিআইএন এবং পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণীর ক্রমিক নম্বর উল্লেখ করতে হবে এবং তাতে করদাতার স্বাক্ষর থাকতে হবে।সংযুক্ত আলাদা কাগজটি পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণীর অংশ হিসেবে বিবেচিত হবে। উদাহরণস্বরূপ, কোন করদাতা যদি কোন আয় বছরে ৩ জন ব্যক্তিকে ঋণ প্রদান করে থাকেন তাহলে ফরম IT-10B2016 এর সাথে আলাদা কাগজ সংযুক্ত করে তাতে নিম্নরূপভাবে তথ্য লিপিবদ্ধ করা যেতে পারেঃ

কর বছরঃ ২০১৮-২০১৯
টিঅইএনঃ
ক্রমিক ৮ ডি: ঋণ প্রদানঃ

ক্রমঋণ গ্রহনকারীর নামটিআইএন ও সার্কেলপরিমাণ
মোট

(করদাতার স্বাক্ষর)

২০১৬-১৭ কর বছরে নতুন প্রবর্তিত পরিসম্পদ, দায় ও ব্যায় বিবরণী (IT-10B2016) এর বিভিন্ন অংশের বিবরণঃ

ক্রমিক নং-১: কর বছরের তথ্য দিতে হবে। ২০১৮-১৯ কর বছরের জন্য পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী দাখিলের ক্ষেত্রে এ ঘরের বক্সগুলোতে বাংলা বা ইংরেজীতে নিম্নরূপভাবে লিখতে হবে:

ক্রমিক নং-২: আয় বছরের শেষ দিনের তারিখ উল্লেখ করতে হবে। তারিখটি দিন-মাস-বছর আকারে লিখতে হবে। ২০১৮-১৯ কর বছরের জন্য পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী দাখিলের ক্ষেত্রে এ ঘরের বক্সগুলোতে বাংলা বা ইংরেজীতে নিম্নরূপভাবে লিখতে হবে:

ক্রমিক নং-৩: করদাতার নাম লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-৪: করদাতার টিআইএন লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-৫: করদাতার ব্যবসা বা পেশা খাতের আয় থাকলে উক্ত ব্যবসা বা পেশার সমাপনী মুলধনের পরিমাণ উপ-ক্রমিক ৫ এ তে উল্লেখ করতে হবে। করদাতা কোম্পানির শেয়ারহোল্ডার পরিচালক হলে উপ-ক্রমিক ৫ বি তে শেয়ার মালিকানার বিবরণ লিপিবদ্ধ করতে হবে। এরূপ করদাতার জন্য অফসিল ২৫ সংযুক্ত করতে হবে।

উপ-ক্রমিক ৫এ ও ৫বি এর সমষ্টি ক্রমিক ৫এ লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-৬: করদাতার অকৃষি সম্পত্তি (আবাসিক বা বাণিজ্যিক প্লট, বাড়ী, এপার্টমেন্ট ইত্যাদি অকৃষি সম্পত্তির কয়েকটি উদাহরণ) থাকলে তফসিল ২৫ সংযুক্ত করে অকৃষি সম্পত্তির বিবরণ, মূল্য ইত্যাদির বিস্তারিত তথ্য সেখানে দিতে হবে। এ ক্রমিকের উপ-ক্রমিক ৬এ তে করদাতার অকৃষি সম্পত্তির মূল্য এবং ৬ বি তে অকৃষি সম্পত্তির বিপরিতে কোন অগ্রিম অর্থ পরিশোধ করা হলে তার জের (balance) লিখতে হবে।ক্রমিক নং-৭: করদাতার কৃষি সম্পত্তি থাকলে তার তথ্য এখনে লিখতে হবে এবং তফসিল ২৫ সংযুক্ত করে অকৃষি সম্পত্তির বিবরণ, মূল্য ইত্যাদির বিস্তারিত তথ্য সেখানে দিতে হবে।

ক্রমিক নং-৮: করদাতার আর্থিক সম্পত্তি (financial assets) যেমন শেয়ার, ডিবেঞ্চার, সঞ্চয়পত্র, বন্ড ও অন্যান্য নিরাপত্তা জামানত, এফডিআর, মেয়াদি আমানত, সঞ্চয়ী পেনশন স্কীম, ঋণ প্রদানসহ অন্য কোন financial assets থাকলে তার তথ্য এ ক্রমিকে প্রদান করতে হবে।

ক্রমিক নং-৯: করদাতার ব্যক্তিগত মোটরগাড়ি, জীপ বা মাইক্রোবাস থাকলে তার মূল্য (রেজিস্ট্রেশন ও আনুষাঙ্গিক খরচসহ) ক্রমিক ৯ এ লিখতে হবে। একাধিক যানবাহন থাকলে (রেজিস্ট্রেশন ও আনুষাঙ্গিক খরচসহ মূল্যের সমষ্টি লিখতে হবে। প্রতিটি যানবাহনের ক্ষেত্রে ব্র্যান্ড নাম, ইঞ্জিন ক্যাপাসিটি (সিসি) ও রেজিস্ট্রেশন নম্বর লিখতে হবে। দুইয়ের অধিক যানবাহন থাকলে আলাদা কাগজ সংযুক্ত করে বর্নিত তথ্য সমূহ লিপিবব্ধ করতে হবে।

ক্রমিক নং-১০: করদাতার সোনা, হীরা, জেম বা মূল্যবান পাথরসহ কোন অলংকারাদি থাকলে তার তথ্য এ ক্রমিকে লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-১১: এ ক্রমিকে করদাতার আসবাবপত্র, সরঞ্জাম, ইলেকট্রনিক্স দ্রব্যাদি ইত্যাদির তথ্য লিপিবদ্ধ করতে হবে।

ক্রমিক নং-১২: এছাড়া ১-১১ ক্রমিকে উল্লিখিত সম্পত্তির বাইরে করদাতার আরো কোন মুল্যবান সম্পত্তি থাকলে তার তথ্য এ ক্রমিকে প্রদান করতে হবে।

ক্রমিক নং-১৩: করদাতার ব্যবসা-বহির্ভুত নগদ অর্থ, ব্যাংক, কার্ড বা ইলেকট্রনিক অর্থের ব্যালেন্স, প্রভিডেন্ট ফান্ডের ব্যালেন্স এবং ক্রমিক নং ৮-এ উল্লিখিত অংক বাদে অন্যান্য জমা, ব্যালেন্স বা অগ্রিম প্রদানের পরিমাণ লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-১৪: ক্রমিক নং ১-১৩ উল্লিখিত সম্পত্তির পরিমাণের সমষ্টি এ ক্রমিকে লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-১৫: করদাতার ব্যবসা-বহির্ভূত দায় যেমন ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে গৃহীত ঋণ, জামানতবিহীন ঋণ, ওভারড্রাফট ও অন্যান্য ঋণ (যেমান, বাকীতে ক্রয় সংক্রান্ত দায়) এ ক্রমিকে লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-১৬: ক্রমিক ১৪ ও ক্রমিক ১৫ এর বিয়োগফল হবে সংশ্লিষ্ট আয় বছরের নীট পরিসম্পদ, যা ক্রমিক ১৬ তে লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-১৭: পূর্ববর্তী আয় বছরের শেষ তারিখের নীট পরিসম্পদ ক্রমিক ১৭ তে লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-১৮: ক্রমিক ১৬ ও ক্রমিক ১৭ এর বিয়োগফল হবে নীট পরিসম্পদের পরিবর্তন (পরিবৃদ্ধি বা হ্রাস), যা ক্রমিক ১৮ তে লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-১৯: সম্পদ অর্জন ব্যতীত অন্য কোন কারণে তহবীলের বহিঃপ্রবাহ (outflow) ঘটলে তা এ ক্রমিকে লিখতে হবে। এ ক্রমিকে যে বিষয়গুলো থাকবে তা হলো: বর্ষিক জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়, কর পরিশোধ, ব্যবসা বহির্ভূত কোন আর্থিক লোকসান, কর্তন বা IT-10BB2016 তে উল্লেখিত নয় এমন কোন ব্যয়, কোন দান বা কোন চাঁদা প্রদান (যা পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী আর কোথাও প্রতিফলিত হয়নি)।

ক্রমিক নং-২০: ক্রমিক ১৮ ও ক্রমিক ১৯ এর যোগফল হবে আয় বছরে করদাতার তহবিলের মোট বহিঃপ্রবাহ (outflow), যা এ ক্রমিকে লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-২১: এ ক্রমিকে তহবিলের উৎস লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-২২: ক্রমিক ২১ ও ক্রমিক ২০ এর বিয়োগফল এ ক্রমিকে লিখতে হবে।

জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বিবরণীঃ

প্রত্যেক ব্যক্তি-করদাতাকে তার আয়কর রিটার্নের সাথে বিধি নির্ধারিত ফরমে ও পদ্ধতিতে জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বিবরণী দাখিল করতে হবে। তবে বেতন অথবা ব্যবসা বা পেশা থাতের আয় রয়েছে এরূপ ব্যক্তি করদাতার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট আয় বছরের মোট আয় ৩ লাক্ষ টাকার বেশি না হয়ে থাকলে উক্ত ব্যয়ের বিবরণী দাখিল বধ্যতামূলক হবে না। তবে কোন কোম্পানির শেয়ারহোল্ডার পরিচালক হলে তার আয়ের উৎস বা মোট আয়ের পরিমাণ যা-ই হোক, আয়কর রিটার্নের সাথে জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বিবরণী দাখিল তার জন্য বাধ্যতামূলক। যে সকল করদাতা ২০১৬-১৭ কর বছরে প্রবর্তিত নতুন রিটার্ন ফরম (IT-11GA2016) ব্যবহার করবেন তাদেরকে IT-10BB2016 ফরম ব্যবহার করতে হবে। যে সকল ব্যক্তি-করদাতা পুরনো ফরমে রিটার্ন দাখিল করবেন তারা ঐ রিটার্নের সাথে আগের বিবরণী দাখিল করবেন। জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বিবরণী ফরমে করদাতার আয় বছর সংশ্লিষ্ট ব্যয় বা কর পরিশোধের তথ্য সন্নিবেশ করতে হবে। এ বিবরণীতে উল্লিখিত খরচসমূহের যোগফল পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণীতে উল্লেখ করতে হবে।

২০১৬-১৭ কর বছরে নতুন প্রবর্তিত জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বিবরণী (IT-10BB2016) এর বিভিন্ন অংশের বিবরণঃ

ক্রমিক নং-১: কর বছরের তথ্য দিতে হবে। ২০১৭-১৮ কর বছরের জন্য জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বিবরণী দাখিলের ক্ষেত্রে এ ঘরে বাংলা বা ইংরেজীতে নিম্নরূপভাবে লিখতে হবে:

ক্রমিক নং-২: আয় বছরের শেষ দিনের তারিখ উল্লেখ করতে হবে। তারিখটি দিন-মাস-বছর আকারে লিখতে হবে। ২০১৮-১৯ কর বছরের জন্য জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বিবরণী দাখিলের ক্ষেত্রে এ ঘরে বাংলা বা ইংরেজীতে নিম্নরূপভাবে লিখতে হবে:

ক্রমিক নং-৩: করদাতার নাম লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-৪: করদাতার টিআইএন লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-৫: এ ক্রমিকে করদাতা ও তার পরিবারের নির্ভরশীল সদস্যদের ভরণ পোষণ ব্যয়ের তথ্য দিতে হবে।

ক্রমিক নং-৬: এ ক্রমিকে আবাসন সংক্রান্ত ব্যয়ের তথ্য লিখতে হবে। ভাড়া বাড়ীতে বসবাস না করা হলে মন্তব্যের ঘরে নিজের বাড়ী, পিতা/মাতার বাড়ী, নিয়োগ কর্তা প্রদত্ত বাড়ী অথবা অন্য কারো হলে সে তথ্য লিখতে হবে। নিজ বাড়ীর রক্ষণাবেক্ষণ ব্যয় (যেমন পৌরকর, সার্ভিস চার্জ ইত্যাদি) যদি থাকে তবে তা এখানে লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-৭: এ ক্রমিকে যানবাহন বিষয়ে যাবতীয় ব্যয় যেমন-জ্বালানী, রক্ষণাবেক্ষণ, ড্রাইভারের বেতন ইত্যাদি খাতে ব্যয়ের তথ্য দিতে হবে।

ক্রমিক নং-৮: বিদ্যুৎ বিল, গ্যাস বিল, পানির বিল, পয়ঃনিষ্কাশন ও দৈনন্দিন বর্জ্য অপসারণ সংক্রান্ত খরচ, আবাসিক টেলিফোন বিল, ইন্টারনেট ও টেলিভিশন চ্যানেল সাবস্ক্রিপশন বিল, গৃহস্থালির সহায়ক কর্মী ও গৃহস্থালী ও সেবা সংশ্লিষ্ট অন্যান্য ব্যয়ের তথ্য এ ক্রমিকে দিতে হবে।

ক্রমিক নং-৯: এ ক্রমিকে সন্তানদের পড়াশোনার ব্যয়ের তথ্য দিতে হবে।ক্রমিক নং-১০: উৎসব, অনুষ্ঠান, উপহার, দেশে ও বিদেশে ভ্রমণ, অবকাশ, অনুদান, মানবিক সহায়তাসহ অন্যান্য বিশেষ ব্যয়ের তথ্য এ ক্রমিকে দিতে হবে।

ক্রমিক নং-১১: উপরের ক্রমিক ৫ হতে ১০ এ বর্ণিত ব্যয়ের বাইরে অন্য কোন ব্যয় হয়ে থাকলে সে খরচ, চিকিৎসা খরচ থাকলে সে অংক এ ঘরে লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-১২: জীবনযাপন সংশ্লিষ্ট মোট খরচ অর্থৎ ক্রমিক ০৫ হতে ক্রমিক ১১ তে প্রদর্শিত ব্যয়ের সমষ্টি এ ঘরে লিখতে হবে।

ক্রমিক নং-১৩: এ ঘরে করদাতা কর্তৃক উৎসে পরিশোধিত কর এবং করদাতার নিজের পরিশোধ করা আয়ের, সারচার্জ অথবা অন্য কোন পরিশোধিত অংক লিখতে হবে। বিবেচ্য আয় বছরে অন্য কোন কর, সারচার্জ অথবা কর-সংশ্লিষ্ট অন্য কোন অংক পরিশোধ করা হলে তাও এ ক্রমিকে উল্লেখ করতে হবে।

ক্রমিক নং-১৪: ক্রমিক নং ১২ ও ১৩ এর প্রদর্শিত অংকের সংশ্লিষ্ট এ ক্রমিক উল্লেখ করতে হবে।



Check Also

পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী এবং জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বিবরণী, করবর্ষঃ ২০১৮-২০১৯