Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
Legal Study
Tuesday , December 18 2018

Bar Council Exam, Crpc, Section 46 to 67

বার কাউন্সিল পরীক্ষার প্রস্তুতি
ফৌজদারী কার্যবিধি, ১৮৯৮
(১৮৯৮ সালের ৫নং আইন)
[ফ্রী ভার্সন]
নোটিশঃ আপনি ফ্রী ভার্সন ব্যবহার করছেন। প্রিমিয়াম ভার্সন ব্যবহার করতে চাইলে 01729820646, 01703924452, 01688107393 (সকাল ১০.০০টা থেকে রাত ১০.০০টা) এই নাম্বারগুলোতে কল দিয়ে প্রিমিয়াম ভার্সনে নিবন্ধন করে নিন।

লগইন বা নিবন্ধন করতে ক্লিক করুন

লগইন বা নিবন্ধন করতে ক্লিক করুন

নির্দেশনাঃ আপনি যদি আমাদের প্রিমিয়াম মেম্বার হয়ে থাকেন তাহলে নিচের লগইন ফরম ব্যবহার করে ইউজার নেইম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন। যারা ফেইবুকের মাধ্যমে রেজিষ্ট্রেশন করেছেন তারা লগইন ফরমের নিচে ফেইসবুক লগইন বাটনে ক্লিক করে প্রবেশ করুন। আর যারা নতুন নিবন্ধন করতে চান তারা লগইন ফরমের নিচে নির্দেশিত পদ্ধতি অনুসরণ করুন।

ফেইসবুক লগইন

ফেইসবুকের মাধ্যমে নিবন্ধনঃ ফেইসবুকের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে চাইলে নিচের ফেইসবুক রেজিষ্ট্রেশন বাটনে ক্লিক করুন। (বিঃদ্রঃ সফলভাবে রেজিষ্ট্রেশন করার পর এপ্রুভালের জন্য আমাদের হট লাইন ০১৭২৯৮২০৬৪৬, ০১৭২৯৮২০৬৪৬, ০১৭০৩৯২৪৪৫২, ০১৬৮৮১০৭৩৯৩ নাম্বারে কল দিন)

ফেইসবুক রেজিষ্ট্রেশন

ফেইবুকের মাধ্যমে লগইন না হলে কি করব?

আপনি যদি ফেইসবুকের মাধ্যমে রেজিষ্ট্রেশন করতে না পারেন তাহলে, নিচের ফরমটি পূরণ করে আপনি আপনার রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন করতে পারেন। (বিঃদ্রঃ পরবর্তীতে লগইন করার জন্য ইউজার নেইম ও পাসওয়ার্ড সংরক্ষন করুন এবং এপ্রুভালের জন্য আমাদের হট লাইন ০১৭২৯৮২০৬৪৬, ০১৭২৯৮২০৬৪৬, ০১৭০৩৯২৪৪৫২, ০১৬৮৮১০৭৩৯৩ নাম্বারে কল দিন)

REGISTRATION FORM

কেন অনলাইনে জয়েন করব?

১) আপনি হয়তো বার কাউন্সিল পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য ফিজিক্যালি কোচিং করেন। কেউ স্থান, কাল, পাত্র ভেদে ৩,০০০ থেকে ১৫,০০০ টাকায় ভর্তি হয়েছেন কিন্তু, সেখানে জ্যাম ঠেলে (বিশেষ করে ঢাকা শহরে) কোচিং করতে যাওয়া-আসা একটা বিরক্তিকর ও সময়ের ব্যাপার। আপনার জন্য আমাদের অনলাইন গাইডলাইন ভীষণ হেল্পফুল হবে। কেননা এটা একটা ভালো বইয়ের সমতুল্য।

২) একদল মেধাবী আইনজীবী প্রতিনিয়ত তথ্য উপাত্ত আপডেট করে থাকেন অর্থ্যাৎ আপনি নির্ভুল শিখবেন।

৩) আপনি হয়তো শিক্ষানবীশ আইনজীবী। কিন্তু কোর্টের ব্যস্ততায় পড়ার সময় সঙ্কুচিত। ফেসবুক ব্রাউজিং এর পাশাপাশি একটু নিরিবিলি সময় পেলেই ব্যস্ত হয়ে পড়তে পারেন আমাদের অনলাইনে।

৪) আপনি হয়তো চাকুরীজীবী। ফিজিক্যালি কোচিং এ ভর্তি হবার সুযোগ নেই। সময়ও কম। সে কারনে ই-লার্নিং আপনার জন্য সর্বোত্তম পন্থা।

৫) আমাদের রয়েছে দক্ষ অনলাইন কর্মী যারা আপনাকে সকাল ১০.০০ টা থেকে রাত ১০.০০ পর্যন্ত অনলাইন সেবা প্রদান করবেন।

৬) আমাদের ই-লার্নিং সেবাটি এন্ড্রয়েড মোবাইলেও ব্যবহার করা যায় সাবলীলভাবে এবং ২৪ ঘন্টাই ব্যবহার করতে পারবেন।

৭) আমরা আর্ন্তজাতিক মানের সার্ভার (ইউএসএ সার্ভার) ব্যবহার করি অর্থ্যাৎ সার্ভার ডাউন হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই।

৮) আমাদের রয়েছে আর্ন্তজাতিক মানের কমোডো এস.এস.এল সার্টিফিকেট সুতরাং আপনার কম্পিউটার বা মোবাইল থাকবে সম্পূর্ণ সুরক্ষিত।

এরকম অসংখ্য কারণেই আপনি আমাদের সাথে জয়েন করতে পারেন।

ই-লার্নিং সম্পর্কে বিস্থারিত জানতে ক্লিক করুন

ই-লার্নিং সম্পর্কে বিস্থারিত জানতে ক্লিক করুন

ই-লানিং এর মাধ্যমে কি কি পাব?

  • ৩০০+ মডেল টেষ্ট (আইনগত ব্যাখ্যাসহ);
  • ৩০০০+ ইউনিক এম.সি.কিউ;
  • বিষয়ভিত্তিক মডেল টেষ্ট;
  • বিষয়ভিত্তিক ব্যাখ্যামূলক প্রশ্ন;
  • ধারাভিত্তিক ভিডিও লেকচার;
  • লিখিত পরীক্ষার জন্য বিষয়ভিত্তিক হেন্ডনোট;
  • মৌখিক পরীক্ষার জন্য সার্বিক সহযোগীতা।

আইন সংক্রান্ত ভিডিও লেকচার কিভাবে দেখব?

আমাদের YouTube চ্যানেলে প্রতিদিন নতুন নতুন ভিডিও আপলোড করা হবে। YouTube চ্যানেলে Subscribe না করলে নতুন ভিডিও লেকচারের Notifications পাবেন না। ফ্রী ভিডিও লেকচারের Notifications পেতে নিচের “সাবক্রাইব করুন” বাটনে ক্লিক করুন।

সাবসক্রাইব করুন

বিঃদ্রঃ যারা মোবাইলে ব্যবহার করবেন তারা Google Play Store এ প্রবেশ করে Legal Study লিখে সার্চ দিন। সার্চ দেওয়ার পর সার্চ রেজাল্টে Legal Study (A True Art of Learning) এর নিচে Advocate Almonsur লেখা দেখতে পাবেন। এটিই হচ্ছে আমাদের অফিসিয়াল Google Apps অথবা নিচের GET IT ON Google Play বাটনে ক্লিক বা স্পর্শ করে Apps ডাউনলোড করতে পারেন।

ফৌজদারী কার্যবিধির সংশ্লিষ্ট ধারা
(ধারা ৪৬ থেকে ৬৭ পর্যন্ত)
সর্তকবানীঃ যেহেতু ফৌজদারী কার্যবিধি ইংরেজী ভাষায় প্রণীত হয়েছে সেহেতু, অত্র আইন পড়ার সময় অবশ্যই ইংরেজীকে প্রাধান্য দিতে হবে। এখানে আইনের যে বাংলায় অনুবাদ দেওয়া হয়েছে তাতে ভুল-ভ্রান্তি থাকাটাই স্বাভাবিক কিন্তু, অত্র আইনের যে ইংরেজী ভার্সন দেওয়া হয়েছে তা প্রায় শতভাগ শুদ্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে।

নির্দেশনাঃ প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা, এই অংশে ফৌজদারী কার্যবিধির সংশ্লিষ্ট ধারা এবং ধারাভিত্তিক বিশ্লেষণাত্মক আলোচনা করা হয়েছে। আপনি যদি নিবন্ধিত ফ্রী মেম্বার বা নিবন্ধিত না হয়ে থাকেন তাহলে ফৌজদারী কার্যবিধির ধারাগুলো সম্পর্কে একটি ধারণা পাবেন। শুধুমাত্র প্রিমিয়াম মেম্বারদের জন্য বিশ্লেষণাত্মক অংশটুকু ধারাগুলোর নিচে প্রদর্শিত হবে। মনে রাখা ভাল, “আইন হচ্ছে বুঝার বিষয়, মুখস্তের বিষয় নয়”।

ধারা ৪৬। কিভাবে গ্রেফতার করতে হয় (Arrest how made):

(১) কথা অথবা কাজের দ্বারা হেফাজতে আত্মসমর্পণ করা না হলে পুলিশ অফিসার অথবা গ্রেফতারকারী অন্য কোন ব্যক্তি গ্রেফতার করার সময় যাকে গ্রেফতার করা হচ্ছে প্রকৃতপক্ষে তার দেহ স্পর্শ বা আটক করবেন। (In making an arrest the police-officer or other person making the same shall actually touch or confine the body of the person to be arrested, unless there be a submission to the custody by word or action.)

(২) এরূপ ব্যক্তি যদি বলপূর্বক তাকে গ্রেফতারের চেষ্টায় বাধা দেয় অথবা গ্রেফতার এড়াতে চেষ্টা করে তাহলে উক্ত পুলিশ অফিসার পারবেন। (If such person forcibly resists the endeavor to arrest him, or attempts to evade the arrest, such police-officer or other person may use all means necessary to effect the arrest.)

(৩) এই ধারায় এরূপ কোন অধিকার দেয়া হয়নি যার ফলে মৃত্যুদণ্ড অথবা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দ্বারা শাস্তিযোগ্য কোন অপরাধে অভিযুক্ত নহে এরূপ ব্যক্তির মৃত্যু ঘটানো যেতে পারে। (Nothing in this section gives a right to cause the death of a person who is not accused of an offence punishable with death or with transportation for life)

Note: The words `transportation for life` construed as a reference to `imprisonment for life` by section 3 of the Penal Code (Amendment) Ordinance, 1985 (Ordinance No. XLI of 1985)

ধারা ৪৭। যাকে গ্রেফতার করতে হবে সেই ব্যক্তি যে স্থানে প্রবেশ করেছে সেই স্থানে তল্লাসী (Search of place entered by person sought to be arrested): গ্রেফতার পরোয়ানা অনুসারে কার্যরত কোন ব্যক্তি অথবা গ্রেফতারের অনুমতি প্রাপ্ত কোন পুলিশ অফিসারের যদি বিশ্বাস করার কারণ থাকে যে, যে ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হবে সে কোন স্থানে প্রবেশ করেছে বা কোন স্থানে আছে, তাহলে উক্ত স্থানে বসবাসকারী বা উক্ত স্থানের ভারপ্রাপ্ত ব্যক্তি উপরোক্তরূপে কার্যরত ব্যক্তি বা উক্ত পুলিশ অফিসারের দাবীক্রমে তাকে অবাধে উক্ত স্থানে প্রবেশ করতে দিবেন এবং উক্ত স্থানে তল্লাসীর জন্য সকল প্রকার যুক্তিসংগত সুযোগ সুবিধা দিবেন। (If any person acting under a warrant of arrest, or any police-officer having authority to arrest, has reason to believe that the person to be arrested has entered into, or is within, any place, the person residing in, or being in charge of, such place shall, on demand of such person acting as aforesaid or such police-officer, allow him free ingress thereto, and afford all reasonable facilities for a search therein.)

ধারা ৪৮। প্রবেশ করা যাচ্ছে না সেক্ষেত্রে পদ্ধতি (Procedure where ingress not obtainable): ৪৭ ধারা অনুসারে এরূপ স্থানে প্রবেশ করা না গেলে, কর্তৃত্ব ও উদ্দেশ্য জ্ঞাপন এবং যথাযথভাবে প্রবেশের দাবী জানাবার পর যদি অন্যভাবে প্রবেশ করা না যায়, তাহলে পরোয়ানা অনুসারে কার্যরত ব্যক্তি এবং যেক্ষেত্রে পরোয়ানা জারি হতে পারে কিন্তু যাকে গ্রেফতার করা হবে তাকে পলায়নের সুযোগ না দিয়ে প্রবেশ লাভ করা যায় না, সেক্ষেত্রে পুলিশ অফিসারের পক্ষে উক্ত স্থানে প্রবেশ ও তল্লাসী করা এবং প্রবেশের জন্য কোন গৃহ অথবা স্থানের এরূপ গৃহ বা স্থান, যাকে গ্রেফতার করা হচ্ছে তারই হোক বা অন্যকোন ব্যক্তির হোক বাইরে অথবা ভিতরের দরজা অথবা জানালা ভেঙ্গে ফেলা আইনসংগত হবে। (If ingress to such place cannot be obtained under section 47 it shall be lawful in any case for a person acting under a warrant and in any case in which a warrant may issue, but cannot be obtained without affording the person to be arrested an opportunity of escape, for a police-officer to enter such place and search therein, and in order to effect an entrance into such place, to break open any outer or inner door or window of any house or place, whether that of the person to be arrested or of any other person, if after notification of his authority and purpose, and demand of admittance duly made, he cannot otherwise obtain admittance:)

অন্দর মহলের দরজা ভাঙ্গা (Breaking open zanana): তবে শর্ত এই যে, এরূপ স্থান যদি কোন স্ত্রীলোকের (যাকে গ্রেফতার করা হবে তিনি নন) প্রকৃত দখলের অন্তর্ভুক্ত কোন কামরা হয় এবং যিনি সামাজিক রীতি নীতি অনুসারে জনসাধারণের সম্মুখেই আসেন না, তাহলে এরূপ কাৰ্যরত ব্যক্তি অথবা পুলিশ অফিসার উক্ত কামরায় প্রবেশের পূর্বে উক্ত স্ত্রীলোককে জানাবেন যে, তিনি অবাধে সরে যেতে পারেন এবং অতঃপর তিনি কামরা ভেঙ্গে তাতে প্রবশে করতে পারবেন। (Provided that, if any such place is an apartment in the actual occupancy of a woman (not being the person to be arrested) who, according to custom, does not appear in public such person or police-officer shall, before entering such apartment, give notice to such woman that she is at liberty to withdraw and shall afford her every reasonable facility for withdrawing, and may then break open the apartment and enter it.)

ধারা ৪৯। মুক্তি লাভের জন্য দরজা ও জানালা ভাঙ্গার ক্ষমতা (Power to break open doors and windows for purposes of liberation): গ্রেফতারের ক্ষমতাপ্রাপ্ত কোন পুলিশ অফিসার অথবা অন্য কোন ব্যক্তি গ্রেফতারের জন্য কোন গৃহ অথবা স্থানে আইনসংগতভাবে প্রবশে করার পর তথায় আটকা পড়লে উক্ত গৃহের অথবা স্থানের বাইরের অথবা ভিতরের দরজা অথবা জানালা ভেঙ্গে ফেলে বের হতে পারবেন। (Any police-officer or other person authorized to make an arrest may break open any outer or inner door or window of any house or place in order to liberate himself or any other person who, having lawfully entered for the purpose of making an arrest, is detained therein.)

ধারা ৫০। অনাবশ্যক বাধা প্রদান করা যাবে না (No unnecessary restraint): পলায়ন প্রতিরোধের যতটুকু প্রয়োজন, গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির উপর অবশ্যই তদপেক্ষা অধিক বাধা প্রদান করা যাবে না। (The person arrested shall not be subjected to more restraint than is necessary to prevent his escape.)

ধারা ৫১। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের তল্লাশী (Search of arrested persons):  যখন কোন পুলিশ অফিসার কোন ব্যক্তিকে এমন পরোয়ানা অনুসারে গ্রেফতার করেন, যাকে জামিনের ব্যবস্থা নাই, অথবা জামিনের ব্যবস্থা থাকলেও গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি জামিন সংগ্রহ করতে পারে না; এবং যখন কোন ব্যক্তিকে বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার করা হয় অথবা কোন সাধারণ নাগরিক যখন পরোয়ানা অনুসারে গ্রেফতার করেন এবং গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে আইনত জামিন দেয়া যায় না, অথবা সে জামিন সংগ্রহ করতে অসমর্থ হয়। তখন গ্রেফতারকারী অফিসার, অথবা কোন সাধারণ নাগরিক গ্রেফতার করলে তিনি গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে যার নিকট অর্পণ করেন সেই পুলিশ অফিসার তার দেহ তল্লাশী করতে পারেন এবং প্রয়োজনীয় পরিধেয় বস্ত্র ছাড়া তার নিকট যা পাওয়া যাবে, তা নিরাপদ হেফাজতে রাখতে পারবেন। (Whenever a person is arrested by a police-officer under a warrant which does not provide for the taking of bail, or under a warrant which provides for the taking of bail but the person arrested cannot furnish bail, and Whenever a person is arrested without warrant, or by a private person under a warrant, and cannot legally be admitted to bail, or is unable to furnish bail, the officer making the arrest or, when the arrest is made by a private person, the police-officer to whom he makes over the person arrested, may search such person, and place in safe custody all articles, other than necessary wearing-apparel, found upon him.)

ধারা ৫২। মহিলার দেহ তল্লাশীর পদ্ধতি (Mode of searching women): কোন স্ত্রীলোকের দেহ তল্লাশী করার প্রয়োজন হলে শালীনতার প্রতি তীক্ষ্ন দৃষ্টি রেখে তা অন্য একজন স্ত্রীলোক দ্বারা করাতে হবে। (Whenever it is necessary to cause a woman to be searched, the search shall be made by another woman, with strict regard to decency.)

ধারা ৫৩। অপরাধজনক অস্ত্র আটক করার ক্ষমতা (Power to seize offensive weapons): এই কার্যবিধি অনুসারে গ্রেফতারকারী অফিসার অথবা অন্য কোন ব্যক্তি গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির নিকট কোন আক্রমণাত্মক অস্ত্র থাকলে তা তার নিকট হতে নিতে পারবেন এবং এই কার্যবিধি অনুসারে যে আদালত বা অফিসারের নিকট তাকে ঐ গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে হাজির করতে হবে সেই আদালত বা অফিসারের নিকট তিনি উক্তরূপে গৃহীত সমস্ত অস্ত্র প্রদান করবেন। (The officer or other person making any arrest under this Code may take from the person arrested any offensive weapons which he has about his person, and shall deliver all weapons so taken to the Court or officer before which or whom the officer or person making the arrest is required by this Code to produce the person arrested.)

ধারা ৫৪। যখন পুলিশ বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার করতে পারে (When police may arrest without warrant):

(১) যে কোন পুলিশ অফিসার ম্যাজিষ্ট্রেটের আদেশ অথবা পরোয়ানা ব্যতিত নিম্নলিখিত ব্যক্তিগণকে গ্রেফতার করতে পারবেন- (Any police-officer may, without an order from a Magistrate and without a warrant, arrest-)

প্রথমতঃ কোন আমলযোগ্য অপরাধের সাথে জড়িত কোন ব্যক্তি অথবা এরূপ জড়িত বলে যার বিরুদ্ধে যুক্তিসংগত অভিযোগ করা হয়েছে অথবা বিশ্বসযোগ্য খবর পাওয়া গেছে, অথবা যুক্তিসংগত সন্দেহ রয়েছে; (firstly, any person who has been concerned in any cognizable offence or against whom a reasonable complaint has been made or credible information has been received, or a reasonable suspicion exists of his having been so concerned;)

দ্বিতীয়তঃ আইনসংগত কারণ ব্যতিত যার নিকট ঘর ভাঙ্গার কোন সরঞ্জাম রয়েছে সেরূপ ব্যক্তি; এই আইনসঙ্গত কারণ প্রমাণ করার দায়িত্ব তার; (secondly, any person having in his possession without lawful excuse, the burden of proving which excuse shall lie on such person, any implement of house breaking;)

তৃতীয়তঃ এই কার্যবিধি অনুসারে অথবা সরকারের আদেশ দ্বারা যাকে অপরাধী ঘোষণা করা হয়েছে; (thirdly, any person who has been proclaimed as an offender either under this Code or by order of the Government;)

চতুর্থতঃ চোরাই বলে যুক্তিসংগতভাবে সন্দেহ করা যেতে পারে, এরূপ মাল যার নিকট রয়েছে এবং যে এরূপ মাল সম্পর্কে কোন অপরাধ করেছে বলে যুক্তিসংগতভাবে সন্দেহ করা যেতে পারে; (fourthly, any person in whose possession anything is found which may reasonably be suspected to be stolen property and who may reasonably be suspected of having committed an offence with reference to such thing;)

পঞ্চমতঃ পুলিশ অফিসারকে তার কার্যে বাধাদানকারী ব্যক্তি অথবা যে ব্যক্তি আইনসংগত হেফাজত হতে পলায়ন করেছে অথবা পলায়নের চেষ্টা করে; (fifthly, any person who obstructs a police-officer while in the execution of his duty, or who has escaped, or attempts to escape, from lawful custody;)

ষষ্ঠতঃ বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী হতে পলায়নকারী বলে যাকে যুক্তিসংগতভাবে সন্দেহ করা যেতে পারে; (sixthly, any person reasonably suspected of being a deserter from the armed forces of Bangladesh)

সপ্তমতঃ বাংলাদেশে করা হলে অপরাধ হিসাবে শাস্তিযোগ্য হতো, বাংলাদেশের বাইরে কৃত এরূপ কোন কার্যের সাথে জড়িত ব্যক্তি অথবা এরূপে জড়িত বলে যার বিরুদ্ধে যুক্তিসংগত অভিযোগ করা হয়েছে, অথবা বিশ্বাসযোগ্য খবর পাওয়া গেছে, অথবা যুক্তিসংগত সন্দেহ রয়েছে এবং যার জন্য সে প্রত্যাপর্ণ সম্পর্কিত কোন আইন অথবা ১৮৮১ সালের পলাতক অপরাধী আইন অনুসারে অথবা অন্য কোনভাবে বাংলাদেশে গ্রেফতার হতে অথবা হেফাজতে আটক থাকতে বাধ্য; (seventhly, any person who has been concerned in, or against whom a reasonable complaint has been made or credible information has been received or a reasonable suspicion exists of his having been concerned in, any act committed at any place out of Bangladesh, which, if committed in Bangladesh, would have been punishable as an offence, and for which he is, under any law relating to extradition or under the Fugitive Offenders Act, 1881, or otherwise, liable to be apprehended or detained in custody in Bangladesh;)

অষ্টমতঃ কোন মুক্তিপ্রাপ্ত আসামী যে ৫৬৫ ধারার (৩) উপধারা অনুসারে প্রণীত কোন নিয়ম লংঘন করে; [eighthly, any released convict committing a breach of any rule made under section 565, sub-section (3);]

নবমতঃ যাকে গ্রেফতারের জন্য অন্য কোন পুলিশ অফিসারের নিকট হতে অনুরোধ পাওয়া গেছে। যদি যাকে গ্রেফতার করা হবে তার এবং যে অপরাধ বা অন্য যে কোন কারণে গ্রেফতার করা হবে সেই ব্যাপারে অনুরোধ প্রেরণ করেছেন, সেই অফিসার উক্ত ব্যক্তিকে আইনসংগতভাবে বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার করতে পারবেন। (ninthly, any person for whose arrest a requisition has been received from another police-officer, provided that the requisition specifies the person to be arrested and the offence or other cause for which the arrest is to be made and it appears therefrom that the person might lawfully be arrested without a warrant by the officer who issued the requisition.)

Note: The words `or from any unit of forces of an Acceding State declared under the Extradition Act, 1903, to be a unit desertion from which is an extradition offence` were omitted by section 3 and 2nd Schedule of the Bangladesh Laws (Revision And Declaration) Act, 1973 (Act No. VIII of 1973)

ধারা ৫৫। ভবঘুরে, অভ্যাসগত দস্যু প্রভৃতিকে গ্রেফতার (Arrest of vagabonds, habitual robbers, etc):

(১) থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার অনুরূপভাবে নিম্নলিখিত ব্যক্তিগণকে গ্রেফতার করতে অথবা গ্রেফতার করাতে পারবেন- (Any officer in Charge of a police-station may, in like manner, arrest or cause to be arrested-)

ক) থানার এলাকার মধ্যে যে ব্যক্তি এই পরিস্থিতিতে নিজের উপস্থিতি গোপন করার জন্য সাবধানতা গ্রহণ করছে, যার ফলে যুক্তিসংগতভাবে বিশ্বাস করা যেতে পারে যে, কোন আমলযোগ্য অপরাধ করার উদ্দেশ্যেই যে এরূপ সাবধানতা গ্রহণ করছে; অথবা (any person found taking precautions to conceal his presence within the limits of such station, under circumstances which afford reason to believe that he is taking such precautions with a view committing a cognizable offence; or)

খ) থানার এলাকার মধ্যে যে ব্যক্তি কোন প্রকাশ্য জীবিকা নাই অথবা যে ব্যক্তি নিজের সম্পর্কে কোন সন্তোষজনক বিবরণ দিতে পারে না; অথবা (any person within the limits of such station who has no ostensible means of subsistence, or who cannot give a satisfactory account of himself; or)

গ) যে ব্যক্তি অভ্যাসগতভাবে ডাকাত, গৃহভঙ্গকারী, অথবা চোর বলে পরিচিত অথবা যে ব্যক্তির চোরাই বলে জেনে অভ্যাসগতভাবে চোরাই মামল গ্রহণ করার দুর্নাম আছে, সে অভ্যাসগতভাবে অন্যকে আঘাতের ভীতি প্রদর্শন করে। (any person who is by repute an habitual robber, house-breaker or thief, or an habitual receiver of stolen property knowing it to be stolen, or who by repute habitually commits extortion or in order to the committing of extortion habitually puts or attempts to put persons in fear of injury.)

ধারা ৫৬। বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতারের জন্য পুলিশ অফিসার অধস্তনকে প্রেরণ করে তখনকার পদ্ধতি (Procedure when police-officer deputes subordinate to arrest without warrant):

(১) যখন কোন থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার অথবা চতুর্দশ অধ্যায় অনুসারে তদন্তকারী কোন পুলিশ অফিসার (তার উপস্থিতি ছাড়া অন্যভাবে) যখন তার অধস্তন কোন অফিসার দ্বারা এরূপ কোন ব্যক্তিকে বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার তখন তিনি যাকে গ্রেফতার করা হবে, তার এবং যে অপরাধে অথবা অন্য যে কারনে গ্রেফতার করতে হবে সে সম্পর্কে সুস্পষ্ট নির্দেশ উল্লেখ করে যে অফিসারের দ্বারা গ্রেফতার করাতে হবে, তার নিকট একটি লিখিত আদেশ প্রদান করবেন। যাকে বিষয়বস্তু জানাবেন এবং সে যদি ইচ্ছা করে, তবে যে তাকে আদেশটি দেখাবেন। [When any officer in charge of a police-station or any police-officer making an investigation under Chapter XIV requires any officer subordinate to him to arrest without a warrant (otherwise than in his presence) any person who may lawfully be arrested without a warrant, he shall deliver to the officer required to make the arrest an order in writing, specifying the person to be arrested and the offence or other cause for which the arrest is to be made. The officer so required shall, before making the arrest, notify to the person to be arrested the substance of the order and, if so required by such person, shall show him the order.]

ধারা ৫৭। নাম ও বাসস্থান জানাতে অস্বীকৃতি (Refusal to give name and residence):

(১) যখন কোন ব্যক্তি কোন পুলিশ অফিসারের উপস্থিতিতে কোন আমলযোগ্য অপরাধ করে অথবা এরূপ অপরাধ করার অভিযোগে অভিযুক্ত হয় এবং উক্ত অফিসার দাবী করলে নিজের নাম ও বাসস্থান জানাতে অস্বীকার করে অথবা এরূপ নাম ও বাসস্থানের কথা প্রকাশ করে যা উক্ত অফিসার যুক্তিসংগতভাবে মিথ্যা বলে মনে করেন তখন তার নাম বা বাসস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হবার জন্য উক্ত অফিসার তাকে গ্রেফতার করতে পারবেন। (When any person who in the presence of a police-officer has committed or has been accused of committing a non-cognizable offence refuses, on demand of such officer, to give his name and residence or gives a name or residence which such officer has reason to believe to be false, he may be arrested by such officer in order that his name or residence may be ascertained.)

(২) এরূপ ব্যক্তির প্রকৃত নাম ও বাসস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গেলে প্রয়োজন বোধে ম্যাজিষ্ট্রেটের নিকট হাজির হবার উদ্দেশ্যে জামিনদারসহ অথবা জামিনদার ব্যতিত মুচলেকা সম্পাদনের পর তাকে ছেড়ে দিতে হবে। তবে শর্ত এই যে, এরূপ ব্যক্তি বাংলাদেশের বাসিন্দা না হলে এক বা একাধিক বাসিন্দাকে তার মুচলেকার জামিনদার হতে হবে। (When the true name and residence of such person have been ascertained, he shall be released on his executing a bond, with or without sureties, to appear before a Magistrate if so required. Provided that, if such person is not resident in Bangladesh, the bond shall be secured by a surety or sureties resident in Bangladesh.)

(৩) গ্রেফতারের সময় হতে চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে যদি এরূপ ব্যক্তির প্রকৃত নাম ও বাসস্থান পাওয়া না যায় অথবা সে যদি মুচলেকা সম্পাদনে ব্যর্থ হয়, অথবা প্রয়োজন মতে পর্যাপ্ত জামিনদার সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হয় তাহলে তাকে সংঙ্গে সংঙ্গে নিকটস্থ এখতিয়ার সম্পন্ন ম্যাজিষ্ট্রেটের নিকট প্রেরণ করতে হবে। (Should the true name and residence of such person not be ascertained within twenty-four hours from the time of arrest or should he fail to execute the bond, or, if so required, to furnish sufficient sureties, he shall forthwith be forwarded to the nearest Magistrate having jurisdiction.)

ধারা ৫৮। ভিন্ন অধিক্ষেত্রে অপরাধীর অনুসরণ (Pursuit of offenders into other jurisdictions):

এই অধ্যায়ের অধীন কোন ব্যক্তিকে বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতারের ক্ষমতাপ্রাপ্ত কোন পুলিশ অফিসার বাংলাদেশের যে কোন স্থানে উক্ত ব্যক্তিকে অনুসরণ করতে পারবেন। (A police-officer may, for the purpose of arresting without warrant any person whom he is authorized to arrest under this Chapter, pursue such person into any place in Bangladesh.)

ধারা ৫৯। বেসরকারী লোক কর্তৃক গ্রেফতার এবং এরূপ গ্রেফতারের পরবর্তী কার্যপদ্ধতি (Arrest by private persons and procedure on such arrest):

(১) যে কোন সাধারণ নাগরিক তার মতে জামিন অযোগ্য ও আমলযোগ্য অপরাধ সংগঠনকারীকে অথবা অপরাধী বলে ঘোষিত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করতে পারেন এবং অনাবশ্যক বিলম্ব না করে পুলিশ অফিসারের নিকট দিবেন অথবা পুলিশ অফিসারের অনুপস্থিতিতে ক্ষেত্রে নিকটস্থ থানার হেফাজতে নিয়ে যাবেন অথবা নিয়ে যাবার ব্যবস্থা করবেন। (Any private person may arrest any person who in his view commits a non-bailable and cognizable offence, or any proclaimed offender, and without unnecessary delay, shall make over any person so arrested to a police-officer, or, in the absence of a police-officer, take such person or cause him to be taken in custody to the nearest police-station.)

(২) এরূপ ব্যক্তিকে ৫৪ ধারার বিধানের আওতাভুক্ত বলে বিশ্বাস করার কারণ থাকলে কোন পুলিশ অফিসার পুনরায় গ্রেফতার করবেন। (If there is reason to believe that such person comes under the provisions of section 54, a police-officer shall re-arrest him.)

(৩) সে আমলঅযোগ্য অপরাধ করেছে বলে বিশ্বাস করার কারণ থাকলে এবং পুলিশ অফিসারের দাবীকে সে নিজের নাম ও বাসস্থান প্রকাশ করতে অস্বীকার করলে অথবা যদি এরূপ নাম ও বাসস্থান দেয় যা উক্ত অফিসারের মিথ্যা বলে বিশ্বাস করার কারণ ঘটে, তাহলে তার বিরুদ্ধে ৫৭ ধারার বিধানানুসারে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সে কোন অপরাধ করেছে বলে বিশ্বাস করার মত যথেষ্ট কারণ না থাকলে তাকে সংগে সংগে ছেড়ে দিতে হবে। (If there is reason to believe that he has committed a non-cognizable offence, and he refuses on the demand of a police-officer to give his name and residence, or gives a name or residence which such officer has reason to believe to be false, he shall be dealt with under the provisions of section 57. If there is no sufficient reason to believe that he has committed any offence, he shall be at once released.)

ধারা ৬০। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে ম্যাজিষ্ট্রেট অথবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নিকট নিতে হবে (Person arrested to be taken before Magistrate or officer in charge of police-station): বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতারকারী পুলিশ অফিসার অনাবশ্যক বিলম্ব না করে এবং এখানে বিবৃত জামিনের ব্যবস্থা সাপেক্ষে গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে এই বিষয়ে এখতিয়ারবান কোন ম্যাজিষ্ট্রেট অথবা কোন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নিকট নিয়ে যাবেন অথবা প্রেরণ করবেন। (A police-officer making an arrest without warrant shall, without unnecessary delay and subject to the provisions herein contained as to bail, take or send the person arrested before a Magistrate having jurisdiction in the case, or before the officer in charge of a police-station.)

ধারা ৬১। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে ২৪ ঘন্টার বেশি সময় আটক রাখা যাবে না (Person arrested not to be detained more than twenty-four hours): কোন পুলিশ অফিসার বিনা পরোয়ানায় প্রেফতারকৃত কোন ব্যক্তিকে সামগ্রিক পরিস্থিতি বিবেচনায় যুক্তিসংগত সময় অপেক্ষায় অধিককাল আটক রাখবেন না এবং ১৬৭ ধারা অনুসারে কোন ম্যাজিষ্ট্রেটের বিশেষ আদেশ না থাকলে এরূপ আইনের সময় গ্রেফতারের স্থান হতে ম্যাজিষ্ট্রেটের আদালতে যাবার সময় বাদ দিয়ে চব্বিশ ঘন্টার অধিক হবে না। (No police-officer shall detain in custody a person arrested without warrant for a longer period than under all the circumstances of the case is reasonable, and such period shall not, in the absence of a special order of a Magistrate under section 167, exceed twenty-four hours exclusive of the time necessary for the journey from the place of arrest to the Magistrate’s Court.)

ধারা ৬২। গ্রেফতার সম্পর্কে পুলিশ রিপোর্ট দিবে (Police to report apprehensions): থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসারগণ মেট্রোপলিটন এলাকায় চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেটের নিকট এবং অন্য এলাকায় চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের নিকট অথবা তিনি নির্দেশ দিলে মহকুমা ম্যাজিষ্ট্রেটের নিকট তাদের স্ব স্ব এলকার মধ্যে বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতারকৃত সমস্ত ব্যক্তি এবং তাদিগকে জামিন দেয়া হয়েছে কিনা, সে সম্পর্কে সংবাদ দিবেন। (Officers in charge of police-stations shall report in a Metropolitan Area, to the Chief Metropolitan Magistrate, and in other areas, to the District Magistrate, and also to the Chief Judicial Magistrate] the cases of all persons arrested without warrant, within the limits of their respective stations, whether such persons have been admitted to bail or otherwise.)

Note-1: The words and commas `in the Dacca Metropolitan Area, to the Chief Metropolitan Magistrate, and in other areas, to the District Magistrate, or if the District Magistrate` were substituted, for the words and commas `to the District Magistrate, or, if he` by section 2 and Schedule of the Code of Criminal Procedure (Amendment) Ordinance, 1976 (Ordinance No. LXXXVI of 1976)

Note-2: The letter `a` was substituted, for the words `the Dacca` by section 2 of the Code of Criminal Procedure (Amendment) Act, 1980 (Act No. IV of 1980)

Note-3: The words “and also to the Chief Judicial Magistrate” were substituted for the words and comma “or if the District Magistrate so directs, to the Sub-divisional Magistrate” by section 22 of the Code of Criminal Procedure (Amendment) Act, 2009 (Act No. XXXII of 2009) (with effect from 1st November, 2007).

ধারা ৬৩। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির অব্যাহতি (Discharge of person apprehended): যে ব্যক্তি কোন পুলিশ অফিসার কর্তৃক গ্রেফতার হয়েছে, তাকে তার নিজের মুচলেকা, অথবা জামিন, অথবা কোন ম্যাজিষ্ট্রেটের বিশেষ আদেশ ব্যতিত ছেড়ে দেয়া যাবে না। (No person who has been arrested by a police-officer shall be discharged except on his own bond, or on bail, or under the special order of a Magistrate.)

ধারা ৬৪। ম্যাজিষ্ট্রেটের উপস্থিতিতে সংঘটিত অপরাধ (Offence committed in Magistrate’s presence): যখন কোন ব্যক্তি কোন নির্বাহী অথবা জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের উপস্থিতিতে ও তার এখতিয়ারের স্থানীয় সীমার মধ্যে কোন অপরাধ করে, তখন তিনি নিজে অপরাধীকে গ্রেফতার করতে পারেন অথবা অন্য কোন ব্যক্তির প্রতি অপরাধীকে গ্রেফতারের আদেশ দিতে পারেন, এবং অতঃপর এখানে বিবৃত জামিনের ব্যবস্থা সাপেক্ষে অপরাধীকে হেফাজতে নিবার নির্দেশ দিতে পারবেন। (When any offence is committed in the presence of a Magistrate whether Executive or Judicial] within the local limits of his jurisdiction, he may himself arrest or order any person to arrest the offender, and may thereupon, subject to the provisions herein contained as to bail commit the offender to custody.)

Note: The words “whether Executive or Judicial” after the word “Magistrate” were inserted by section 23 of the Code of Criminal Procedure (Amendment) Act, 2009 (Act No. XXXII of 2009) (with effect from 1st November, 2007).

ধারা ৬৫। ম্যাজিষ্ট্রেট কর্তৃক অথবা ম্যাজিষ্ট্রেটের উপস্থিতিতে গ্রেফতার (Arrest by or in presence of Magistrate): কোন কোন নির্বাহী অথবা জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্টেট তার উপস্থিতিতে ও তার এখতিয়ারের স্থানীয় সীমার মধ্যে যে কোন সময়ে এরূপ যে কোন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করতে অথবা গ্রেফতারের নির্দেশ দিতে পারবেন, যাকে গ্রেফতারের জন্য তিনি উক্ত সময়ে ক্ষমতাবান, এবং পরিস্থিতি অনুসারে পরোয়ানা জারি করতে পারবেন। (Any Magistrate whether Executive or Judicial] may at any time arrest or direct the arrest, in his presence, within the local limits of his jurisdiction, of any person for whose arrest he is competent at the time and in the circumstances to issue a warrant.)

Note: The words “whether Executive or Judicial” after the word “Magistrate” were inserted by section 24 of the Code of Criminal Procedure (Amendment) Act, 2009 (Act No. XXXII of 2009) (with effect from 1st November, 2007).

ধারা ৬৬। পলায়ন করলে আসামীকে অনুসরন ও পুনরায় গ্রেফতারের ক্ষমতা (Power, on escape, to pursue and retake):  কোন ব্যক্তি আইনসংগত হেফাজত হতে পলায়ন করলে অথবা তাকে ছিনিয়ে নেওয়া হলে যে ব্যক্তির হেফাজত হতে সে পলায়ন করেছে অথবা যার নিকট হতে তাকে ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে, সেই ব্যক্তি সংগে সংগে বাংলাদেশের যে কোন স্থানে তাকে অনুসরণ করতে ও গ্রেফতার করতে পারবেন। (If a person in lawful custody escapes or is rescued, the person from whose custody he escaped or was rescued may immediately pursue and arrest him in any place in Bangladesh.)

ধারা ৬৭। ৬৬ ধারার অধীন গ্রেফতারের ক্ষেত্রে ৪৭, ৪৮ এবং ৪৯ ধারার বিধানসমূহ প্রযোজ্য হবে (Provisions of sections 47, 48 and 49 to apply to arrest under section 66): ৪৭, ৪৮ এবং ৪৯ ধারার বিধান ৬৬ ধারার অধীন গ্রেফতারের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে, যদিও এরূপ গ্রেফতারকারী ব্যক্তি পরোয়ানা অনুসারে কাজ করছেন না এবং গ্রেফতারের ক্ষমতাপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসার নন। (The provisions of sections 47, 48 and 49 shall apply to arrests under section 66, although the person making any such arrest is not acting under a warrant and is not a police-officer having authority to arrest.)

<<< পূর্ববর্তী পরবর্তী >>>

Check Also

পরিসম্পদ, দায় ও ব্যয় বিবরণী এবং জীবনযাত্রা সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বিবরণী, করবর্ষঃ ২০১৮-২০১৯