Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
Legal Study
Wednesday , January 23 2019

বার কাউন্সিল পরীক্ষার প্রস্তুতি, সুনির্দিষ্ট প্রতিকার আইনের ভিডিও লেকচার-০২

52-BBC SR Act Header

বার কাউন্সিল পরীক্ষার প্রস্তুতি
সুনির্দিষ্ট প্রতিকার আইন, ১৮৭৭
(১৮৭৭ সালের ১নং আইন)
[ফ্রী ভার্সন]
আপনি ফ্রী ভার্সন ব্যবহার করছেন। প্রিমিয়াম ভার্সন ব্যবহার করতে চাইলে 01716409127, 01729820646, 01703924452, 01688107393 (সকাল ১০.০০টা থেকে রাত ১০.০০টা) এই নাম্বারগুলোতে কল দিয়ে প্রিমিয়াম ভার্সনে নিবন্ধন করে নিন।
ধারা ৮ থেকে ১১ পর্যন্ত

35-BBC Sectional Analysis Directions

সংশ্লিষ্ট নির্দেশনা দেখতে এখানে ক্লিক করুন

সংশ্লিষ্ট নির্দেশনা দেখতে এখানে ক্লিক করুন

নির্দেশনাঃ প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা, এই অংশে সংশ্লিষ্ট আইনের বিশ্লেষণাত্মক আলোচনা করা হয়েছে। আপনি যদি নিবন্ধিত ফ্রী মেম্বার বা নিবন্ধিত না হয়ে থাকেন তাহলে দেওয়ানী কার্যবিধির ধারাগুলো সম্পর্কে একটি ধারণা পাবেন। শুধুমাত্র প্রিমিয়াম মেম্বারদের জন্য বিশ্লেষণাত্মক অংশটুকু ধারাগুলোর নিচে প্রদর্শিত হবে। মনে রাখা ভাল, “আইন হচ্ছে বুঝার বিষয়, মুখস্তের বিষয় নয়”।

<<< পূর্ববর্তী পরবর্তী >>>

ধারা-৮ সুনির্দিষ্ট স্থাবর সম্পত্তি পুনরুদ্ধার (Recovery of specific immoveable property):সুনির্দিষ্ট স্থাবর সম্পত্তির দখলের অধিকারী ব্যক্তি দেওয়ানী কার্যবিধি অনুযায়ী উহার নির্ধারিত পন্থায় পুনরুদ্ধার করতে পারেন। (A person entitled to the possession of specific immoveable property may recover it in the manner prescribed by the Code of Civil Procedure.)

ধারা ৯। স্থাবর সম্পত্তির দখলচু্যত ব্যক্তি কর্তৃক মামলাঃ যথাযথ আইগত পন্থা ব্যতিরেকেযদি কোন ব্যক্তি তার অসম্মতিতে স্থাবর সম্পত্তির দখলচ্যুত হয়, তবে সে অথবা তার মাধ্যমে দাবিদার কোন ব্যক্তি মামলার মাধ্যমে তার দখল পুনরুদ্ধার করতে পারে, যদিও তেমন মামলায় অপর কোন স্বত্ব খাড়া করা হতে পারে, তথাপিও।

এই ধারার কোন কিছুই তেমন সম্পত্তির ব্যাপারে নিজের স্বত্ব প্রতিষ্ঠা এবং তার দখল পুনরুদ্ধার করার জন্য কোন ব্যক্তি কর্তৃক মামলা দায়েরের পথে প্রতিবন্ধকতা হবে না।

এই ধারা অনুসারে সরকারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা যাবে না। এই ধারা অনুসারে দায়েরকৃত মামলার প্রদত্ত কোন ডিক্ৰী বা আদেশের বিরুদ্ধে কোন আপীল করা যাবে না, অথবা তেমন কোন আদেশ বা ডিক্ৰী পুনর্বিবেচনার কোন অনুমতি প্ৰদান করা হবে না।

ধারা ১০। সুনির্দিস্ট অস্থাবর সম্পত্তির পুনরুদ্ধারঃ সুনির্দিষ্ট অস্থাবর সম্পত্তির দখলের অধিকারী ব্যক্তি দেওয়ানী কাৰ্যবিধিতে নির্ধারিত পন্থায় উহার দখল পুনরুদ্ধার করতে পারে।

ব্যাখ্যা-১ঃ এই ধারা অনুসারে একজন জিম্মাদার যার জন্য জিম্মাদার নিযুক্ত হয়েছে সেই ব্যক্তির হিতকর স্বার্থে নিয়ােগ করার অধিকার রয়েছে এমন অস্থাবর সম্পত্তির দখল পাওয়ার জন্য মামলা দায়ের করতে পারে।

ব্যাখ্যা-২ঃ সম্পত্তির বর্তমান দখলের জন্য অস্থায়ী বা বিশেষ অধিকারকেই এই ধারা অনুযায়ী দায়েরকৃত মামলাকে সমর্থন করার জন্য যথেষ্ট।

উদাহরণঃ

(ক) ক, খ-কে সারাজীবনের জন্য জমি উইল করে দেয় এবং গ-কে পরবতীর্ণ অধিকারী নির্দেশ করে। কি মারা গেল। খ জমিতে প্রবেশ করে কিন্তু গ, খ-এর সম্মতি ছাড়াই স্বত্ব-সম্পর্কিত দলিলসমূহ হস্তগত করে। খ, গ-এৰ নিকট হতে সেগুলি পুনরুদ্ধার করতে পারে।

(খ) ক কিছু ঋণের জন্য খ এর নিকট কিছু অলংকার বন্ধক রাখে। খ সেগুলি  বিক্রয় করার অধিকারী হবার আগেই বিক্রয় করে। ক ঋণের অর্থ পরিশোধ না করেই অলঙ্কারাদির দখলের জন্য খ-এর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। মামলা অবশ্যই খারিজ হবে। কারণ ক সেগুলির দখলের অধিকারী নয়, তার যতটুকু অধিকার তা হচ্ছে অলঙ্কারসমূহের নিরাপদ সংরক্ষণ নিশ্চিত করা।

(গ) ক, খ কর্তৃক তার নিকট লিখিত একটি চিঠি পেল। খ, ক-এর সম্মতি ছাড়াই উক্ত চিঠি ফিরাইয়া দিলো। উক্ত চিঠিতে ক-এর এমন এক স্বত্ব রয়েছে, যা তাকে খ-এর নিকট হতে পুনরুদ্ধার করার অধিকারী করে।

(ঘ) ক, খ-এর নিকট নিরাপদ সংরক্ষণের জন্য বই এবং কাগজপত্র জমা রাখে। খ সেইগুলি হারিয়ে ফেলল এবং গা সেগুলি পেলো, কিন্তু খ যখন দাবি করল, তখন সেগুলি প্রত্যাৰ্পণ করতে অস্বীকার করল। খ চুক্তি আইনের ১৬৮ ধারা অনুসারে গ-এর যদি কোন অধিকার জন্মে থাকে। তবে তৎসাপেক্ষে গ-এর নিকট হতে পুনরুদ্ধার করতে পারে।

(ঙ) গুদামরক্ষক ক-এর দায়িত্ব ছিল জ-এর নিকট কিছু মাল অর্পণ করায় যা ক-এর দখল হতে খ নিয়ে গিয়েছে। ক, খ-এর বিরুদ্ধে উক্ত মালামালের জন্য মামলা দায়ের করতে পারে।

ধারা ১১। অব্যবহিত দখল লাভের অধিকারী ব্যক্তির কাছ থেকে দখল প্রদানের নিমিত্তে মালিক নয়। এরূপ দখলকারী ব্যক্তির দায় দায়িত্বঃ যে সম্পত্তির মালিক সে নিজে নয়, এমন অস্থাবর সম্পত্তির কোন বিশেষ অংশের দখলকারী বা নিয়ন্ত্রণকারী ব্যক্তিকে নিম্নোক্ত যে কোন অবস্থাতে অবিলম্বিত দখল লাভের অধিকারী ব্যক্তির নিকট উহা প্ৰদানার্থে সুনির্দিষ্টভাবে বাধ্য করা যেতে পারে-

ক) যখন দাবীকৃত সম্পত্তি দাবিদারের জিম্মাদারের বা প্রতিনিধি হিসেবে প্রতিবাদীর নিকট রয়েছে।

(খ) যখন দাবিকৃত বস্তুর ক্ষতি টাকার মাধ্যমে ক্ষতিপূরণ দাবীদারের পর্যাপ্ত প্রতিকার করবে না।

(গ) যখন দাবীকৃত বস্তুর ক্ষতির কোন সাধিত যথার্থ ক্ষতির পরিমান নির্ণয় করা অত্যন্ত কষ্টসাধ্য হবে।

(ঘ) যখন দাবীকৃত বস্তুর দখল দাবিদারের নিকট হতে অন্যায়ভাবে হস্তান্তরিত করা হয়েছে।

উদাহরণঃ

দফা- ক

ক. ইউরোপে যাওয়ার প্রাক্কালে তার সকল আসবাবপত্র তার অনুপস্থিতকালীন সময়ের জন্য এজেন্ট হিসেবে খ-এর জিন্মায় রেখে গেল। খ, ক-এর প্রাধিকার ছাড়াই গ-এর নিকট আসবাবপত্র বন্ধক রাখল এবং তা বিক্রয়ের জন্য বিজ্ঞাপন প্রদান করল। গ-কে ক-এর নিকট উক্ত আসবাবপত্র অর্পণ করত বাধ্য করা যেতে পারে; কারণ সে ক-এর জিম্মাদার হিসেবে তা রাখছে।

দফা-খ

ক্ষ. “ক” র পরিবারের মালিকানাধীন এমন একটি দেবমুর্তির দখল পেলো যার যথাযথ সংরক্ষণ হচ্ছে ‘ক্ষ’ ক-এর নিকট উক্ত দেবমুর্তি অর্পণ করতে খ-কে বাধ্য করা যেতে পারে।

দফা-গ

‘ক’-একজন মৃত চিত্রকরের একটি চিত্র এবং একজোড়া দুষ্পাপ্য চীনামাটির কারুকার্যখচিত পাত্রের অধিকারী । কিন্তু সেগুলো খ-এর দখলে রয়েছে। এ জিনিসগুলো অত্যন্ত বৈশিষ্ট্যপূর্ণ এবং তার বাজার দর নির্ণয়ও কষ্টসাধ্য। ক-এর নিকট এগুলো অৰ্পণ করার জন্য খ-কে বাধ্য করা যেতে পারে।

<<< পূর্ববর্তী পরবর্তী >>>

Check Also

দেনমোহর ও খোরপোষ আদায়ের মোকদ্দমার জন্য একটি লিগ্যাল ড্রাফটিং

ড্রাফটিং এর বিষয়ঃ দেনমোহর ও খোরপোষ আদায়ের মোকদ্দমার জন্য একটি লিগ্যাল ড্রাফটিং সাবলীলভাবে উপস্থাপন করা …