Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
Legal Study
Tuesday , December 18 2018

আপনার ভূমি জরীপ সংক্রান্ত অধিকার সম্পর্কে জেনে নিন

জমি সংক্রান্ত বিষয়টি খুব স্পর্শকাতর৷ বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ থেকে উচ্চ বিত্ত কিংবা উচ্চ শিক্ষিত মানুষও ব্যক্তিগতভাবে নিজেদের জমির উপর তাদের স্বত্ব আছে কিনা? কত পরিমাণ স্বত্ব আছে? সেই হিসাব বুঝে নেয়ার জন্য সব সময়ই সজাগ৷ যেহেতু জমির স্বত্বের হিসাবের ব্যাপারে প্রত্যেকটি মানুষই খুব সজাগ তাই জমির পরিধি নিয়ে বা পরিমাপ নিয়ে নানা ধরনের সমস্যার উদ্ভব হয়৷ এই সমস্যা সমাধানের জন্য জমির সঠিক জরিপ খুবই প্রয়োজন৷

ভূমি জরিপঃ জরিপ তথা ইংরেজী Survey শব্দটি বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যবহার হয়ে থাকে৷ ভূমি জরিপ বলতে বিভিন্ন মৌজা তথা গ্রাম বা সীমানা ভিত্তিক নকশা (Map) তৈরি বা জমির মালিকানা সংক্রান্ত পুরাতন রেকর্ড পর্যালোচনা বা যাচাই বাছাইকে বুঝায়৷ অর্থ্যাৎ সহজ ভাষায় জরিপের সময় পুরাতন তৈরীকৃত নকশা (Map) ও রেকর্ড সংশোধন করা এবং জমির আকৃতি ও প্রকৃতি পরিবর্তন হয়ে থাকলে অর্থ্যাৎ মালিকানার পরিবর্তন হয়ে থাকলে সেই মোতাবেক সামঞ্জস্য রেখে মৌজা বা সীমানার মধ্যে জমির নকশা (Map)  এবং কাগজ পত্রের রেকর্ড তৈরি করাকে বুঝায়৷ (১৮৭৫ সালের  Servey Act এবং ১ঌ৫৭ সালের Technical Rules অনুযায়ী)

আপনার ভূমি জরীপ সংক্রান্ত যে সকল অধিকার রয়েছে তা নিম্নে উল্লেখ করা হলঃ

  • জমি জরিপ হওয়ার পূর্বে জরিপের বিষয়ে জানার অধিকার। যেমনঃ মাইকিং, ঢোল সহরত অথবা বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে। (১৮৭৫ সালের সার্ভে আইনের ৫ ধারা এবং ১৯৫৫ সালের প্রজাস্বত্ব আইনের ২৯ ধারা অনুযায়ী)
  • রেকর্ডের ভুল সংশোধনের জন্য আপিল করার অধিকার। (১৯৫৫ সালের প্রজাস্বত্ব আইনের ৩০ ধারা)
  • চূড়ান্ত রেকর্ডের উদ্দেশ্যে যখন প্রকাশনার কাজ চলে তখন পুনরায় পর্যবেক্ষণের অধিকার।
  • রেকর্ডের মূদ্রিত কপি ও নকশা সংগ্রহের অধিকার।
  • জরিপের খসড়া সংশোধনের জন্য ভুমি প্রশাসন অফিস/সেটেল্টমেন্ট অফিস থেকে ৩০ কার্য দিবস সময় পাবার অধিকার। (১৯৫৫ সালের প্রজাস্বত্ব আইনের ৩০ ধারা)
  • কোন ব্যক্তি মারা গেলে তার উত্তরাধিকারীগণের নাম নতুন করে রেকর্ড করে নেয়ার অধিকার।
  • রেকর্ডের মূদ্রিত কপি পাওয়ার পর তা সংশোধনের অধিকার।
  • চূড়ান্ত রেকর্ড প্রকাশনার পরও যদি কোনো ভূল ত্রুটি থাকে তাহলে ভূমি জরিপ ট্রাইব্যুনালে মামলা করার অধিকার। [১৯৫০ সালের স্টেট একুইজিশন এন্ড টেনান্সি এক্টের ১৪৫ (ক) ধারা]
  • ভূমি জরিপ আপিলেট ট্রাইবুনালে আপিল করার অধিকার। [১৯৫০ সালের স্টেট একুইজিশন এন্ড টেনান্সি এক্টের ১৪৫ (খ) ধারা]
  • বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আপিল বিভাগে আপিল করার অধিকার। [১৯৫০ সালের স্টেট একুইজিশন এন্ড টেনান্সি এক্টের ১৪৫ (গ) ধারা]

Check Also

land law

ভূমি জরিপ সংক্রান্ত অধিকার লংঘন ও প্রতিকার

ভূমি জরিপ সংক্রান্ত অধিকার সাধারনত লংঘন হয় নিম্নোক্ত উপায়েঃ জমি জরিপ হওয়ার বিষয়ে না জানানো৷ …