Wednesday , December 11 2019

খ্রিষ্টান আইনে নারীদের অভিভাবকত্ব সম্পর্কে জানুন

খ্রিষ্টান আইনে অভিভাবকত্বঃ নাবালক, নির্বোধ ও উণ্মাদ যারা নিজের দেখাশোনা নিজে করতে অক্ষম তাদের বিষয়-সম্পত্তি, শিক্ষা, সামাজিক সমস্যা, নিরাপত্তা এবং প্রয়োজনবোধে তাদের পক্ষে যে কোন মামলা মোকদ্দমা পরিচালনার দায়িত্ব আইনসম্মতভাবে পালন করাই হচ্ছে অভিভাবকত্ব। নাবালকরা তাদের অপরিপক্ক বুদ্ধি,অভিজ্ঞতার অভাব এবং সীমিত বিচার বুদ্ধি সম্পন্ন হওয়ার কারণে অন্য কেউ যেন তার দূর্বলতার সুযোগ গ্রহণ করতে না পারে সেজন্য তাদের অধিকার সংরক্ষণের প্রয়োজনে অভিভাবকদের দরকার। খৃষ্টান আইন অনুযায়ী অভিভাবকত্ব সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উল্লখে করা হলঃ

  • খৃষ্টান আইনানুসারে বিয়ে বিচ্ছেদ বা জুডিসিয়াল সেপারেশনের সময় আদালত নাবালকের অভিভাবক নির্ধারণ করে। তাই কোন বিয়ে বিচ্ছেদের রায় দেবার আগে আদালত নাবালকের শিক্ষা ও ভরণপোষণের জন্য অভিভাবক নির্ধারণ করে। যদিও একজন বাবা নাবালকের প্রকৃত অভিভাবক, কিন্তু যখন আদালত একজন নাবালকের অভিভাবকত্ব নির্ধারণ করবে তখন আদালত লক্ষ্য রাখবে;
  • কোন স্বামী বা স্ত্রীর নাবালকের অভিভাবকত্ব পাবার পর অসত্‍ জীবন যাপন করার সুযোগ আছে কি না কিংবা বর্তমানে তারা এরূপ জীবনযাপন করছে কি না;
  • কার কাছে (বাবা-মা) নাবালক থাকলে নাবালকের মঙ্গল ও কল্যাণ হবে এবং
  • ধর্মীয় অনুশাসনের প্রতি বাবার দৃষ্টি আছে কি না।

তারপরেও আরও কয়েকটি ব্যাপার আছে যেগুলো সন্তানের অভিভাবকত্ব নির্ধারণে ভূমিকা রাখে। যেমনঃ

  • সন্তানের ধর্ম;
  • সন্তান যদি মায়ের অভিভাবকত্বে থাকে তাহলে সন্তানকে পিতার ধর্ম বিশ্বাসে বড় করতে হবে৷ খৃষ্টান পারিবারিক আইন অনুযায়ী একটি সন্তানের প্রকৃত অভিভাবক তার পিতা। সে কারণেই মায়ের ধর্ম বিশ্বাস ভিন্ন হলেও সন্তানকে অবশ্যই তার পিতার ধর্ম বিশ্বাসের আলোকে প্রতিপালন করতে হবে। মা যদি সন্তানকে পিতার ধর্ম অনুসারে প্রতিপালনে ব্যর্থ হয়, তাহলে তিনি সন্তানের অভিভাবকত্ব হারাতে পারেন;
  • মায়ের অর্থনৈতিক অবস্থা;
  • মায়ের অর্থনৈতিক অবস্থা যদি ভাল না হয়ে থাকে, যা সন্তানের পরিবর্ধন এবং প্রতিপালনে ব্যাঘাত ঘটাবে বলে আদালত মনে করে এবং একই সাথে সন্তানের সচ্ছল পিতামহ থেকে থাকে তবে সেক্ষেত্রে আদালত মায়ের অভিভাবকত্বের চেয়ে পিতামহের অভিভাবকত্বকে বেশি গুরুত্ব দিবে।

Check Also

বর্গা চাষ, পর্ব-০৭

জমি বর্গা নেয়ার সীমাবদ্ধতাঃ কোন বর্গাদারই ১৫ বিঘার বেশী জমি বর্গাচাষের জন্য গ্রহণ করতে পারবেন না। (১৯৮৪ …