Friday , November 22 2019

সুন্নী উত্তরাধিকার আইনে অবশিষ্টাংশভোগীগণ সম্পর্কে জেনে নিন

অবশিষ্টাংশভোগীগণঃ পুত্র, পুত্রের পুত্র, পিতা, পিতার পিতা, আপন ভাই, আপন বোন, দাদা, বৈমাত্রেয় ভাই, বৈমাত্রেয় বোন, আপন ভাইয়ের পুত্র এবং এর নীচে, আপন ভাইয়ের পুত্র, আপন চাচা, আপন চাচার পুত্র এবং এর নীচে, বৈমাত্রেয় ভাইয়ের পুত্র এবং এর নীচে। যদি অবশিষ্টাংশ ভোগীগণের সাথে মহিলারাও অন্তর্ভূক্ত থাকে, তবে সম্পত্তি এইভাবে বন্টন  করতে হবে যেন পুরুষের অংশ মহিলার দ্বিগুণ হয়। অবশিষ্টাংশ ভোগীদের সবাই মৃত ব্যক্তির  পিতার বংশের সাথে জড়িত। তাই মৃত ব্যক্তির পিতার বংশের সাথে জড়িত নয় বলে তার বৈপিত্রেয় (মাতা একজন কিন্তু পিতা দুইজন) ভাই বোন অবশিষ্টাংশ ভোগী নয়। এখানে উল্লেখ করা প্রয়োজন যে, কোন কোন ক্ষেত্রে  অংশীদারেরাও অবশিষ্টাংশভোগী হিসেবে গণ্য হয়; যেমন কন্যার সাথে পুত্র থাকলে কন্যা পুত্রের সাথে অবশিষ্টাংশভোগী হিসেবে সম্পত্তি লাভ করে। অবশিষ্টাংশ ভোগীগণের প্রধানত নীচের তিনটি শ্রেণীতে ভাগ করা যায়। যেমনঃ

১) নিজ অধিকারসূত্রে অবশিষ্টাংশভোগঃ অবশিষ্টংশভোগীদের তালিকাভুক্ত সব পুরুষই এই শ্রেণীর অন্তর্গত। তারা কখনো অংশীদাররূপে সম্পত্তি পায় না; শুধুমাত্র অবশিষ্টাংশভোগী হিসেবেই সম্পত্তি পেয়ে থাকে। পুত্র, পুত্রের পুত্র যত নীচেই হোক, আপন ভাই এবং বৈমাত্রেয় ভাই (যেখানে দুই মাতা কিন্তু এক পিতা) এই শ্রেণীর অন্তর্ভূক্ত।

২) অন্যের অধিকারসূত্রে অবশিষ্টাংশভোগীঃ তারা সবাই নারী, সংখ্যায় চারজন। তাদের প্রত্যেকেই পুরুষ আত্নীয়ের সাথে পুরুষের অর্ধেক হিসেবে সম্পত্তি লাভ করে থাকে। যেমনঃ কন্যা, পুত্রের সাথে, পুত্রের কন্যা যত নীচেই হোক এর সাথে, আপন বোন আপন ভাই এর সাথে এবং বৈমাত্রেয় বোন বৈমাত্রেয় ভাই এর সাথে অবশিষ্টাংশভোগী হিসেবে সম্পত্তি লাভ করে। যেমনঃ কন্যা, পুত্রের সাথে, পুত্রের কন্যা যত নীচের হোক পুত্রের পুত্র যত নীচের হোক এর সাথে, আপন বোন আপন ভাইয়ের সাথে এবং বৈমাত্রেয় বোন বৈমাত্রেয় ভাইয়ের সাথে অবশিষ্টাংশ ভোগী হিসেবে সম্পত্তি লাভ করে। উল্লেখিত পুরুষ আত্নীয় না থাকলে তারা সবাই অংশীদার হিসেবে সম্পত্তি পেয়ে থাকে।

৩) অন্যান্যদের সাথে এবং অন্যান্য পরিস্থিতিতে অবশিষ্টাংশভোগীঃ আপন বোন এবং বৈমাত্রেয়বোন, কন্যা বা পুত্রের কন্যা যত নীচেরই হোক এর সাথে অবশিষ্টাংশভোগী হিসেবে সম্পত্তি পায়। তাছাড়া অন্যান্য পরিস্থিতিতে  যেমনঃ মৃত ব্যক্তির সন্তান, পুত্রের সন্তান যত নীচেরই হোক না থাকলে পিতা বা পিতার পিতা যত উপরের হোক অবশিষ্টাংশভোগী হিসেবে সম্পত্তি লাভ করে। আবার মৃত ব্যক্তির কন্যা, পুত্রের কন্যা যত নীচের হোক থাকলে পিতা, পিতার পিতা যত উপরের হোক অংশীদার এবং অবশিষ্টাংশভোগী উভয় যোগ্যতায় সম্পত্তি পেয়ে থাকে।

Check Also

বর্গা চাষ, পর্ব-০৭

জমি বর্গা নেয়ার সীমাবদ্ধতাঃ কোন বর্গাদারই ১৫ বিঘার বেশী জমি বর্গাচাষের জন্য গ্রহণ করতে পারবেন না। (১৯৮৪ …